সংবাদ ব্রিফিং

বিদ্যুৎ ও গ্যাস অপচয় করবেন না: প্রধানমন্ত্রী






pm-hasina-gorai24
অহেতুক বিদ্যুৎ ও গ্যাস অপচয় না করতে সবার প্রতি আহ্বান জানিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তিনি বলেছেন, ‘বিদ্যুৎ ও প্রাকৃতিক গ্যাস উৎপাদন যেমন ব্যয়বহুল, তেমনি সময়সাপেক্ষ। তাই বিদ্যুৎ ও জ্বালানিসাশ্রয়ী হবার জন্য আমি সবাইকে অনুরোধ জানাব।’
রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে গতকাল ‘জাতীয় বিদ্যুৎ ও জ্বালানি সপ্তাহ-এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধানমন্ত্রী এ কথা বলেন। তিনি বলেন, ‘আমি চাই অভিভাবক-শিক্ষক থেকে শুরু করে সকলে স্কুল, কলেজ, বিশ্ববিদ্যালয়, অফিস, আদালত—সর্বত্রই আপনারা সাশ্রয়ী মনোভাব নিন, অর্থাৎ বিদ্যুতের সুইচটা একটু নিজেরাই অফ করেন। আমি প্রধানমন্ত্রী হিসেবেও ঘর থেকে বের হওয়ার সময় নিজ হাতেই বিদ্যুতের সুইচটা বন্ধ করে দিই। কাজেই আমি চাই প্রত্যেকের মাঝেই এই মানসিকতাটা থাকতে হবে।

শেখ হাসিনা বলেন, ‘বিদ্যুৎ উৎপাদনের চলমান গতি অব্যাহত রাখার মাধ্যমে আমাদের রূপকল্প-২০২১ অনুযায়ী আগামী ২০২১ সালের মধ্যে দেশের শতভাগ মানুষকে বিদ্যুৎ দিতে পারব।’ তিনি আরও বলেন, এ কাজের অংশ হিসেবে দীর্ঘমেয়াদি পরিকল্পনার আওতায় ২০২১ সালের মধ্যে ২৪ হাজার মেগাওয়াট, ২০৩০ সালের মধ্যে ৪০ হাজার মেগাওয়াট ও ২০৪১ সালের মধ্যে ৬০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ উৎপাদনের মহাপরিকল্পনা নিয়েছে সরকার।

প্রধানমন্ত্রী বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতে বিশেষ অবদানের জন্য দুটি ক্যাটাগরিতে অনুষ্ঠানে পুরস্কার বিতরণ করেন। অনুষ্ঠানে দেশের বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের অগ্রগতিভিত্তিক একটি তথ্যচিত্রও প্রদর্শন করা হয়। অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন নেপালের জ্বালানিমন্ত্রী জনার্দন শর্মা এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়-সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাংসদ তাজুল ইসলাম

বিদ্যুৎ ও জ্বালানি খাতের উন্নয়ন বাংলাদেশের অর্থনীতিকে আরও শক্তিশালী ও বেগবান করবে উল্লেখ করে ভাষণে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের প্রচেষ্টার ফলে দেশে মাথাপিছু বিদ্যুৎ উৎপাদনক্ষমতা ২০০৯ সালের ২২০ কিলোওয়াট আওয়ার থেকে প্রায় দ্বিগুণ হয়ে বর্তমানে ৪০৭ কিলোওয়াট আওয়ারে দাঁড়িয়েছে।

বর্তমানে ৯ হাজার ৮৪০ মেগাওয়াট ক্ষমতার আটটি কয়লাভিত্তিক মেগা প্রকল্প বাস্তবায়নাধীন রয়েছে জানিয়ে শেখ হাসিনা বলেন, ‘এ ছাড়াও আমরা রূপপুরে নিউক্লিয়ার বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের লক্ষ্যে রাশিয়ার সাথে চুক্তি স্বাক্ষর করেছি।