সংবাদ ব্রিফিং

ধর্মীয়

    • শব্দে শব্দে দীন শেখা - ধর্মবিশ্বাস বিষয়ক প্রসিদ্ধতম পরিভাষা ‘আকীদা’। হিজরি চতুর্থ শতকের আগে এ শব্দটির প্রয়োগ তত প্রসিদ্ধ ছিলো না। চতুর্থ হিজরি শতক থেকে এ পরিভাষাটি প্রচলন লাভ করে। আকীদার শাব্দিক পরিচয় : আকীদা শব্দটি আরবি শব্দ। ‘আক্দ’ মূলধাতু থেকে গৃহীত। এর অর্থ বন্ধন করা, গিরা দেওয়া, চুক্তি করা, শক্ত হওয়া ইত্যাদি। ভাষাবিদ ইবনু ফারিস এ শব্দের অর্থ বর্ণনা করে বলেন, “আইন, ক্বাফ ও দাল- ধাতুটির মূল অর্থ একটিই দৃঢ় করণ, দৃঢ়ভাবে বন্ধন, ধারণ বা নির্ভর করা। শব্দটি যত অর্থে ব্যবহৃত হয়েছে তা সবই এই অর্থ থেকে গৃহীত। [ইবনু আবী শাইবা, আবু বাকর আব্দুল্লাহ ইবনু মুহাম্মাদ (২৩৫ হি), আল-মুসান্নাফ (রিয়াদ, সৌদি আরব, মাকতাবাতুর রুশদ, ১ম প্রকাশ, ১৪০৯ হি] আকীদা শব্দটি আক্দ মূলধাতু থেকে গৃহীত। যার অর্থ হচ্ছে, সূদৃঢ়করণ, মজবুত করে বাঁধা। (বায়ানু আকীদাতু আহলিস সুন্নাহ ওয়াল জামাআহ, ১/৪) আকীদার পারিভাষিক পরিচয় : আকীদার পারিভাষিক সংজ্ঞা বর্ণনা করতে গিয়ে আহমদ ইবনু মুহাম্মাদ আল-ফাইউমী (রহ.) তার রচিত আল মিসবাহুল মুনীর গ্রন্থে উল্লেখ করেছেন, মানুষ ধর্ম হিসেবে যা গ্রহণ করে তাকে আকীদা বলা হয়। ইসলামি পরিভাষায় আকীদা বলা হয় নির্দিষ্ট কিছু বিষয়ের ওপর বিশ্বাস স্থাপন কর। সুতরাং ইসলামি আকীদা বরতে এমন কিছু বিষয়ের ওপর বিশ্বাস করাকে বুঝায় যার কারণে ঐ ব্যক্তিকে মুমিন বিচিত করা হয়। শারীআতের পরিভাষায় আকীদা হচ্ছে, মহান আল্লাহ তাআলা, তাঁর ফেরেশতাকুল, তাঁর কিতাবসমূহ, তাঁর [...]
    • নারীদের ইমামতির বিধান শরিয়তে নেই - ঢাকা: ডেনমার্কে মারিয়াম মসজিদের নামাজিরা যেমন সবাই নারী, তেমনি সেই মসজিদের ইমামতিও করেন একজন নারী। এর আগে আমেরিকা, কানাডা এবং দক্ষিণ আফ্রিকায় এরকম নারী ইমামতিতে নামাজের ব্যবস্থা চালু হয়েছে।কিন্তু মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশ বাংলাদেশে, নারীদের ইমামতি করার কোনো উদাহরণ কি আছে? বাংলাদেশে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক শামীম মো. আফজল এ প্রসঙ্গে বলেছেন “কোরান-হাদিসের বিধানমতে এবং ১,৪০০ বছরের ইসলামিক বিধিবিধান অনুসারে যেভাবে পৃথিবীতে এবাদত বন্দেগী চলছে তাতে নারী সম্প্রদায়ের ইমামতি করার কোনো বিধান নেই। কিন্তু যারা নারী ইমামতিতে নামাজের ব্যবস্থা চালু করেছেন তারা বলছেন নবীর মুহাম্মদের সময় আরবের মসজিদে আয়েশা (রা.) নারীদের নামাজে ইমামতি করতেন, যেটি নবী নিজেও অনুমোদন করেছিলেন। এ প্রসঙ্গে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক বলছেন “এটা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও ভ্রান্তিমূলক কথা। এরকম কিছু মিথ্যা হাদিসের বরাত দিয়ে কেউ কিছু বলে থাকেন,তবে এ বিষয়ে কিছু আমার জানাতে নাই। সাত-আট বছর আগে আমেরিকাতে এক ভদ্রমহিলা এই কাজ করতে চাচ্ছিলেন, বিশ্ববাসী মেনে নেয় নাই।” বাংলাদেশের কিছু মসজিদে নারীদের নামাজের ব্যবস্থা আছে, কিন্তু বিশ্বের সুন্নি বা শিয়া কোনো সম্প্রদায়েই নারীদের ইমামতির সুযোগ শরিয়তের বিধানে নাই বলে উল্লেখ করছেন শামীম মো. আফজল। আফজল বলছেন “নারীদের জন্য পর্দার আড়াল থেকে একজন পুরুষ ইমামতি করেন। বিশ্বের কোনো মুসলিম দেশে এমন কিছু নাই। নবী করিম জীবনদশা যে বিধান রেখে গেছেন এটা পরিপূর্ণ, তার সঙ্গে যোগ করা বা বিয়োগ করার কোনো [...]
    • জরুরি কোরবানির মাসআলা - নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পক্ষ থেকে কোরবানি করা মাসআলা : সামর্থ্যবান ব্যক্তির রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পক্ষ থেকে কোরবানি করা উত্তম। এটি বড় সৌভাগ্যের বিষয়ও বটে। নবী কারীম সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম আলী রা.কে তার পক্ষ থেকে কোরবানি করার ওসিয়্যত করেছিলেন। তাই তিনি প্রতি বছর রাসূলুল্লাহ সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লামের পক্ষ থেকেও কোরবানি দিতেন। [সুনানে আবু দাউদ ২/২৯, জামে তিরমিযী ১/২৭৫, ইলাউস সুনান ১৭/২৬৮, মিশকাত ৩/৩০৯]
    • প্রাণীর ছবি অঙ্কন করার বিধান - শিক্ষার উদ্দেশ্যে কোনো কোনো ছাত্রের জন্য কিছু কিছু প্রাণীর ছবি অঙ্কন করার প্রয়োজন হয়, সুতরাং এর বিধান কী হবে? এসব প্রাণীর ছবি অঙ্কন করা বৈধ নয়; কেননা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম ছবি অঙ্কনকারীদেরকে অভিশাপ (লানত) দিয়েছেন; তিনি বলেছেন: إن أشد الناس عذابا عند الله يوم القيامة المصورون» “কিয়ামতের দিন আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে মানুষের মধ্য কঠিন শাস্তির সম্মুখীন হবে ছবি অঙ্কনকারীগণ।” – (বুখারী, হাদিস নং- ৫৬০৬); আর এটা প্রমাণ করে যে, ছবি অঙ্কন করা কবীরা গুনাহের অন্তর্ভুক্ত; কারণ, কবীরা গুনাহ ব্যতীত লানতের (অভিশাপের) বিষয়টি আসে না এবং কবীরা গুনাহের প্রসঙ্গ ছাড়া কঠিন শাস্তির হুমকিও প্রদান করা হয় না; কিন্তু শরীরের হাত, পা ও অনুরূপ অঙ্গ-প্রত্যঙ্গের ছবি অঙ্কন বৈধ; কারণ, এসব অঙ্গ-প্রত্যঙ্গে প্রাণ অবস্থান করে না; হাদিসের বক্তব্যসমূহের বাহ্যিক দিক হল, ঐ ছবি বা অঙ্গ-প্রত্যঙ্গ অঙ্কন করা হারাম, যার মাঝে প্রাণ বা জীবনের অবস্থান সম্ভব; কেননা নবী সাল্লাল্লাহু আলাইহি ওয়াসাল্লাম বলেন: من صور صورة في الدنيا كلف يوم القيامة أن ينفخ فيها الروح وليس بنافخ» “যে ব্যক্তি ছবি তৈরি করে, তাকে কিয়ামতের দিন তাতে জীবন দানের জন্য নির্দেশ দেয়া হবে, কিন্তু সে সক্ষম হবে না।” – (বুখারী, হাদিস নং- ৫৬০৬)। সূত্র : মাজমুউ ফতোয়া ওয়া রাসায়েল (مجموع فتاوى و رسائل ): ২ / ২৭২
    • Shailkupa math dibosh pic -05-05-16 শৈলকুপায় মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত - এইচ.এম ইমরান, শৈলকুপা (ঝিনাইদহ) থেকে : ঝিনাইদহের শৈলকুপায় ইমেজ জাতের (হাইব্রীড) ভূট্টার অধিক ফলন বিষয়ক মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। ব্যাবিলন এগ্রি সাইন্স লিমিটেডের আয়োজনে বৃহস্পতিবার বিকেলে উপজেলার বাগুটিয়া গ্রামের রুহুল আমিনের বাড়ির উঠানে এ মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়। বাগুটিয়া গ্রামের সামসুল ইসলামের সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে গুরুত্বপূর্ণ বক্তব্য রাখেন ব্যাবিলন এগ্রি সাইন্স লিমিটেডের জোনাল সেলস ম্যানেজার (সাউথ জোন) মনিরুজ্জামান জুয়েল। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন এরিয়া সেলস ম্যানেজার জহুরুল ইসলাম, শৈলকুপার পরিবেশক আনোয়ার হোসেন,  নিত্যানন্দনপুর ইউনিয়নের বাগুটিয়া ব্লকের উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা মনি কুমার মৌলিক, উদ্যোক্তা কৃষক ভূট্টা চাষি শাহিদুল্লাহ প্রমুখ। এছাড়াও গ্রামের গণ্যমান্য ব্যক্তিগর্ব ও কৃষক-কৃষাণীরা উপস্থিত ছিলেন। মাঠ দিবসের আলোচনা সভায় বক্তারা বলেন, ইমেজ (হাইব্রীড) জাতের ভূট্টা চাষ করে কম খরচে ও স্বল্প পরিশ্রমে অধিক ফলন পাওয়া সম্ভব। এতে করে অল্প সময়ে ভূট্টা চাষিরা অনেক লাভবান হতে পারেন।
    • masjid কী তাৎপর্য জুম্মার দিনের ? - ইসলামিক দৃষ্টিকোণ থেকে এই দিনটির বিশেষ তাৎপর্য ও গুরুত্ব আমরা অনেকেই জানিনা ! শুক্রবার মুসলমানদের জন্য একটি গুরুত্ব পূর্ণ দিন। অনেকেরই জানা নেই যে শুক্রবার কেন এত গুরুত্বপূর্ণ।ইসলামে শুক্রবারের দিনটি অনেক বরকতময় ও তাৎপর্যপূর্ণ। এই দিনে প্রথম মানুষ হযরত আদম আ কে সৃষ্টি করা হয়েছে,এইদিনে তাকে বেহেশতে স্থান দেয়া হয়েছে,এই দিনেই তিনি পৃথিবীতে অবতরণ করেন এবং সপ্তাহের সাতটি দিনের মাঝে শুক্রবারই সে দিন যেদিন তিনি মৃত্যুবরণ করেছিলেন। পবিত্র কোরআন ও হাদিসে জুমার দিনের বহু ফজিলত বর্ণিত হয়েছে। কোরআনে ইরশাদ হচ্ছে, শপথ গ্রহ-নক্ষত্রের কক্ষপথবিশিষ্ট আকাশের। এবং প্রতিশ্র“ত দিবসের। এবং সেই দিবসের যে উপস্থিত হয় এবং যাতে উপস্থিত হয়। (বুরুজ-১-৩) এ আয়াতে শাহিদ- যে দিবস উপস্থিত হয় বলে জুমার দিনকে বোঝানো হয়েছে। আয়াতে মহান আল্লাহ রাব্বুল আলামিন জুমার দিনের শপথ করছেন। সুতরাং এতেই জুমার দিনের গুরুত্ব বুঝে আসে। কারণ গুরুত্বপূর্ণ কোনো বিষয়েরই শপথ করা হয়। বিভিন্ন হাদিস শরিফেও জুমার দিনের অনেক ফজিলত ও তাৎপর্য বর্ণিত হয়েছে। একটি হাদিসে বর্ণিত হয়েছে, সূর্য উদিত হয় এমন সব দিনের মধ্যে শ্রেষ্ঠ দিন হল জুমার দিন। এদিনে হজরত আদম (আ.)-কে সৃষ্টি করা হয়েছে। এদিনেই তাকে জান্নাতে প্রবেশ করানো হয়েছে। আবার এদিনেই তাকে তা থেকে বেরও করা হয়েছে। জুমার দিনেই কিয়ামত সংঘটিত হবে। (তিরমিজি) জুমার দিনে মৃত্যুবরণের বিশেষ ফজিলতও হাদিসে বর্ণিত হয়েছে। হজরত আবদুল্লাহ ইবনে আমর (রা.) [...]
    • 2015-07-03--13_42_49 রাজধানীতে ইসলামী দলগুলোর বিক্ষোভ - রাজধানীতে ইসলামী দলগুলোর বিক্ষোভ রাজধানীতে বিক্ষোভ করেছে ইসলামী দলগুলো। আজ বাদজুমা জাতীয় মসজিদ বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেটে এ বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে তারা। লতিফ সিদ্দিকীকে আবারো গ্রেফতার, ধর্মদ্রোহীদের সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ডের আইন করে সে আইনে লতিফ সিদ্দিকীসহ অন্যান্য নাস্তিকদের ফাঁসির দাবিতে এ বিক্ষোভের আয়োজন করা হয়। মিছিলে জুতা প্রদর্শন ও লতিফ সিদ্দিকীর কুশপুত্তলিকা বহন করে বিক্ষোভকারীরা। এরপর কুশপুত্তলিকা জ্বালিয়ে দেয় তারা।   হেফাজতে ইসলাম ঢাকা মহানগর, সম্মিলিত ইসলামী দলসমূহ, ইসলামী আন্দোলন ঢাকা মহানগর, বাংলাদেশ খেলাফত আন্দোলন, বাংলাদেশ খেলাফত মজলিস, ইসলামী ছাত্র শাসনতন্ত্র আন্দোলনসহ বিভিন্ন সংগঠন বিক্ষোভ মিছিল ও সমাবেশ করে। বায়তুল মোকাররমের উত্তর গেট থেকে শুরু হয়ে পল্টন মোড় হয়ে দৈনিক বাংলা ঘুরে আবার বায়তুল মোকাররমের সামনে এসে মিছিল শেষ হয়। মিছিলে ‘লতিফ সিদ্দিকীর মুক্তি কেন সরকার জবাব চাই’ লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসি চাই দিতে হবে’ ইত্যাদি শ্লোগান দেয়া হয়। হেফাজতের মিছিলপূর্ব সমাবেশে কেন্দ্রীয় নায়েবে আমির ও ঢাকা মহানগরী আমির আল্লামা নূর হোসাইন কাসেমী বলেন, মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীকে মুক্তি দিয়ে সরকার ১৬ কোটি মুসলমানের হৃদয়ে আঘাত করেছে। তিনি আরো বলেন, মুসলমানের দেশে নাস্তিকদের ঠাঁই হবেনা। অবিলম্বে লতিফ সিদ্দিকীকে গ্রেফতার করতে হবে। ধর্মদ্রোহীদের সর্বোচ্চ শাস্তির বিধান রেখে আইন করে সে আইনে মুরতাদ লতিফ সিদ্দিকীর ফাঁসি দিতে হবে। এ দাবি আদায় না হওয়া পর্যন্ত আমরা রাজপথ ছেড়ে যাব না ​
    • FB_IMG_1435788684148-1 পুলিশের বাধায় জামায়াতের ইফতার মাহফিল বন্ধ  - পুলিশের বাধায় জামায়াতের ইফতার মাহফিল বন্ধ টাঙ্গাইলের বাসাইলে পুলিশের বাধায় জামায়াতের ইফতার মাহফিল বন্ধ হয়েছে। জানা যায়, গতকাল মঙ্গলবার বাংলাদেশ জামায়াতে ইসলামী বাসাইল উপজেলা শাখার ইফতার মাহফিল হওয়ার সিদ্ধান্ত ছিল। কিন্তু মেলেনি প্রশাসনের অনুমতি। উপজেলা জামায়াত নেতৃবৃন্দ জানান, ৩০ জুন ইফতার মাহফিলের অনুমতির বিষয়ে বাসাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার আহম্মদের কাছে গেলে তিনি অনুমতি না দিয়ে বরং জায়াতের ইফতার মাহফিল করলে জামায়াত নেতাকর্মীদের আটক করার হুমকি প্রদান করে। এ ব্যাপারে বাসাইল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা দেলোয়ার আহম্মদ বলেন, আমার অনুমতি দেয়ার এখতিয়ার নেই। জেলা প্রশাসকের নিটক থেকে লিখিত অনুমতি ছাড়া জামায়াতের এ ধরনের কর্মসূচি পালনের অনুমোদন নেই। অন্যান্য দলের কর্মসূচির ব্যাপারে জানতে চাইলে তিনি আরও বলেন, অন্য কোন দলের ব্যাপারটা আলাদা
    • FB_IMG_1432049732277 ভারত থেকে ভুলে ভরা কুরআন শরীফ বাংলাদেশে ছড়ানো হচ্ছে - ভারত থেকে ভুলে ভরা কুরআন শরীফ বাংলাদেশে ছড়ানো হচ্ছে। গড়াই২৪নিউজ (নাউজুবিল্লাহ) মুসলমানদের বিভ্রান্ত করার জন্য অভিশাপ্ত ইন্ডিয়ানদের আরো একটি যড়যন্ত। পবিত্র কুরআনে ভুলে ভরপুর কপি সম্পতি সিলেট থেকে উদ্ধার করা হয়েছে। কুদরত উল্লাহ মার্কেট করিমিয়া লাইব্রেরী থেকে,ক্রয়কৃত এবং নিউ এমদাদিয়া প্রকাশনী ৩৭ বাংলাবাজার ঢাকা ১১০০ কর্তৃক। পরিবেশিত ছহীহ নূরানী কোরআন শরীফ”এর মধ্যে বিভিন্ন জায়গায় ভুল প্নিন্ট হয়েছে। পবিত্র কুরআনের উপর লেখা কলকাতা ছাপা,এই প্রকাশনী কতৃক প্রকাশিত কোরআন শরিফের পৃষ্টা নং ২৯৪ এর পর ২৯৫ নং থাকার কথা থাকলেও সেখানে ভুল করে ৩২১ সাপা হয়েছে।বাকি পৃষ্টা কোথায়?? যেমন সূরা কাহাফ এর ২১নং আয়াতের পর ২২ নং আয়াত থাকার কথা থাকলেও সেখানে ২৯ নং আয়াত শুর হয়েছে,এখানে ৭টি আয়াত নেই। এছারাও ২৩ নং পারায় সুরা ইয়াছিনের জায়গায় অন্য একটি সুরার নাম লেখা হয়েছে। সুরা ইয়াছিনের ৫৭ নং আয়াতের পর “সালামুন কাওলাম মির রাব্বীর রাহীম” এর মধ্যে “আলাম আ’হাদ” শব্দটি ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছে। যার ফলে আয়াতের অথই বিকৃত হয়ে যায়। বাংলাদেশের কারিমিয়া লাইব্রেরী সহো একাধিক দোকানে থেকে সংগ্রহিত ঢাকার # নিউ_এমদিয়ার প্রকাশনীর ১ও ১৭ নং সাইজের কোরআন শরীফ কপির মধ্যে এমন ভুল পরিলক্ষত হয়েছে। এর আগে ২০০১ সালে এমন প্রকাশনটী এমন ধরীয়ে দেওয়ার পরয়েও তারা বার বার এমন ভাবে ইচ্ছা কৃত ভুল প্রিন্ট করছে,মুসলিমদের কে কুরআনের প্রতি ঘৃনা আনার জন্য যাতে করে দেশের [...]
    • shapnoooo স্বপ্ন কী এবং কেন মানুষ স্বপ্ন দেখে? - যার নিখুত সৃষ্টি কুশলতায় অস্তিত্ব লাভ করেছে এ বিশ্ব জাহান। যার অসীম কুদরতের অনুপম নিদর্শন চাঁদ-সুরুজ ও সিতারা-আসমান। যার করুণা স্নিগ্ধ লালন-প্রতিপালনে ধন্য সকল জড় উদ্ভিদ প্রাণ। সেই মহান রাব্বুল আলামীনের জন্যই আমার সকাল-সন্ধ্যার হামদ-সানা, আমার দিবস রজনীর স্তুতি-বন্দনা। যার শুভাগমনে আঁধার ঘুচে মানবতার পূর্ব দিগন্তে এক নতুন সূর্যের উদয় হল। মানবতার মুক্তির জন্য মানুষেরই হাতে তায়েফের মাটি যার রক্তে রঞ্জিত হল; সেই নবী রাহমাতুল্লিল আলামীনের প্রতি আমার বিরহী আত্মার সালাত ও সালাম। মদীনা স্বপ্নে বিভোর আমার হৃদয়ের প্রেম-পয়গাম। মানুষ স্বপ্ন দেখে। ভাল স্বপ্ন দেখে, বলে সুন্দর স্বপ্ন দেখেছি। দেখে খারাপ স্বপ্ন, বলে ভয়ানক এক স্বপ্ন দেখেছি। আবার কখনো বলে একটি বাজে স্বপ্ন দেখেছি। আসলে স্বপ্ন কি? এ নিয়ে গবেষণা কম হয়নি, মানব সভ্যতার শুরু থেকে আজ পর্যন্ত। কেউ বলেছেন, এটা একটি মানসিক চাপ থেকে আসে। কেউ বলেছেন, শারীরিক বিভিন্ন ভারসাম্যের ব্যাঘাত ঘটলে এটা দেখা যায়, সে অনুযায়ী। কেউ বলেছেন, সারাদিন মনে যা কল্পনা করে তার প্রভাবে রাতে স্বপ্ন দেখে। স্বপ্ন আধুনিক মনোবিজ্ঞানেরও একটি বিষয়। আবার অনেকে স্বপ্ন না দেখেও বলে এটা আমার স্বপ্ন ছিল। অথবা আমার জীবনের স্বপ্ন এ রকম ছিল না। মানে, মনের আশা, পরিকল্পনা। তাই স্বপ্নের অর্থ এখানে রূপক। আল্লাহ তাআলার পক্ষ থেকে মানুষের জন্য পরিপূর্ণ জীবন ব্যবস্থা হিসাবে এসেছে ইসলাম। এই ইসলাম মানুষের স্বপ্নের ব্যাপারেও উদাসীন [...]
    জাতীয় আন্তর্জাতিক রাজনীতি
    অর্থনীতি খেলাধুলা গড়াই স্পেশাল
    বিনোদন
    ঢাকা বিভাগ চট্রগ্রাম বিভাগ খুলনা বিভাগ
    সিলেট বিভাগ বরিশাল বিভাগ উত্তরবঙ্গ
    বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন
    রুপসজ্জা
    টুরিজম স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি