সংবাদ ব্রিফিং

স্বাস্থ্য

    • গর্ভাবস্থার খিঁচুনি মায়ের মৃত্যু হতে পারে - একজন নারী যখন গর্ভধারণ করেন তখন তাকে বিভিন্ন ধরণের স্বাস্থ্য সমস্যার মোকাবেলা করতে হয় যেমন- রক্তস্বল্পতা, জন্ডিস, খিঁচুনি, উচ্চ রক্তচাপ ইত্যাদি। গর্ভাবস্থার খিঁচুনি একটি অন্যতম স্বাস্থ্য সমস্যা। একে ডাক্তারি ভাষায় প্রিএক্লাম্পশিয়া ও একলাম্পশিয়া বলা হয়। গর্ভাবস্থার খিঁচুনির ফলে মায়ের মৃত্যু পর্যন্ত হতে পারে। গর্ভাবস্থার খিঁচুনি হওয়ার কারণ : সাধারণত প্রথম বার মা হওয়ার সময়, ওজন বেশি হলে, ২০ বছরের কম বয়সে গর্ভধারণ করলে বা বয়স ৪০ এর বেশি হয়ে যাওয়ার পর গর্ভধারণ করলে, উচ্চ রক্ত চাপের সমস্যায় ভুগলে, গর্ভে একের অধিক সন্তান থাকলে, ডায়াবেটিস বা কিডনির সমস্যা থাকলে এবং পরিবারের কারো একলাম্পশিয়া হয়ে থাকলে প্রিএকলাম্পশিয়া হওয়ার ঝুঁকি বৃদ্ধি পায়। প্রায় ৫ শতাংশ অন্তঃসত্ত্বা নারীই প্রিএকলাম্পশিয়া হওয়ার ঝুঁকিতে থাকেন। দুর্ভাগ্যবশত এর তেমন কোন লক্ষণ প্রকাশ পায় না। এজন্য প্রতিবার ডাক্তারের সাথে দেখা করার সময় আপনার রক্তচাপ মাপা এবং প্রস্রাবের প্রোটিন পরীক্ষা করানো জরুরী। গর্ভধারণের ৩৭ সপ্তাহ পরে প্রিএকলাম্পশিয়া আক্রান্ত হওয়ার সম্ভাবনা থাকে। কিন্তু এটি গর্ভাবস্থার দ্বিতীয়ার্ধে যে কোন সময়, প্রসবের সময়, এমনকি প্রসবের পরেও হতে পারে – বিশেষ করে প্রসবের পরের প্রথম ৪৮ ঘন্টায়। এটি মাঝারি থেকে তীব্র আকার ধারণ করতে পারে এবং আস্তে আস্তে বা দ্রুত বৃদ্ধি পেতে পারে। গর্ভাবস্থার খিঁচুনি বা প্রিএকলাম্পশিয়ার লক্ষণগুলো হচ্ছে : ১। শরীরে পানি আসা সাধারণত শরীরে পানি আসাই হচ্ছে প্রিএকলাম্পশিয়ার সবচেয়ে সাধারণ লক্ষণ। যদি [...]
    • প্রায়ই মটরশুঁটি খাওয়া উচিৎ - সুস্বাদু মটরশুঁটি পুষ্টির শক্তিঘর হিসেবেই পরিচিত। পোলাওয়ের সাথে, নুডলসের সাথে, সিদ্ধ করে ইত্যাদি নানা ভাবেই খাওয়া হয় মটরশুঁটি। সহজলভ্য ও জিভে জল আনা এই সবজিটির ক্যালোরির পরিমাণ খুব থাকলেও পুষ্টিতে ভরপুর থাকে। মটরশুঁটিতে ভিটামিন ও মিনারেল থাকার পাশাপাশি ফাইটোনিউট্রিয়েন্ট, লুটেইন এবং জেনান্থিন ও থাকে। মটরশুঁটির স্বাস্থ্য উপকারিতার বিষয়ে জেনে নিই চলুন। ১। ওজন কমতে সাহায্য করে মটরশুঁটি ফাইবারে পরিপূর্ণ হওয়ায় দীর্ঘক্ষণ পেট ভরা থাকতে সাহায্য করে। ফলে অস্বাস্থ্যকর স্ন্যাক্স খাওয়া থেকেও বিরত থাকা যায়। তাছাড়া এর ক্যালোরির পরিমাণও কম থাকে। এক কাপ মটরশুঁটিতে আনুমানিক ১১৮ ক্যালোরি থাকে। এজন্যই ওজন কমতে সাহায্য করে মটরশুঁটি। ২। হৃদপিন্ডের জন্য ভালো মটরশুঁটিতে নিয়াসিন থাকে, যা খারাপ কোলেস্টেরলের মাত্রা কমাতে সাহায্য করে। এছাড়াও মটরশুঁটিতে অ্যান্টিঅক্সিডেন্ট থাকে যা রক্তনালীতে ব্লক হওয়া প্রতিরোধ করে। মটরের সুপ ব্লাডপ্রেশার কমাতে এবং হৃদরোগ প্রতিরোধে সাহায্য করে। ৩। কোষ্ঠকাঠিন্য প্রতিরোধ করে আপনার যদি কোষ্ঠকাঠিন্যের সমস্যা থাকে তাহলে পেট পরিষ্কারের জন্য ফাইবার সমৃদ্ধ খাবার খাওয়া উচিৎ। কোষ্ঠকাঠিন্য থেকে মুক্ত হতে ফাইবার সমৃদ্ধ মটরশুঁটি খেতে পারেন। এছাড়াও মটরশুঁটি বিপাকের উন্নতিতেও সাহায্য করে। ৪। হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতি ঘটায় মটরশুঁটিতে ভিটামিন কে থাকে যা ক্যালসিয়ামের শোষণে সাহায্য করে, ফলে হাড়ের স্বাস্থ্যের উন্নতিতে সাহায্য করে। ১ কাপ সিদ্ধ মটরশুঁটিতে দৈনিক ভিটামিন কে এর চাহিদার ৫০ শতাংশ পূরণ হয়। এছাড়াও মটরশুঁটিতে ভিটামিন বি ১ ও ফলিক এসিড [...]
    • চুল পাকা কীভাবে রোধ করবেন - বয়স বাড়ার সাথে সাথে চুল পাকবে এটাই স্বাভাবিক। কিন্তু ১৫/২০ বছর বয়সেই চুল পাকা অস্বাভাবিক। মেলানিন নামক এক উপাদান চুলের রঙ নির্ধারণ করে, এর উৎপন্নের পরিমাণ কমে গেলেই চুল সাদা হওয়া শুরু করে মানে চুল তার পিগমেনটেসন হারায়। আর একবার পাকা শুরু করলে এর পরিমাণ যেন দিন দিন বাড়তেই থাকে। কিন্তু হয়ে গেলে কিছু করার থাকেনা তাই আগে থেকেই এই ব্যাপারে সচেতন হতে হবে। স্ট্রেস থেকে দূরে থাকুনঃ স্ট্রেস চুলের অকাল-পক্কতার প্রধান কারণ। হাসি খুশিতে জীবনটা ভরিয়ে তুলুন। দিনে কয়েকবার লম্বা শ্বাস নিন আর ব্যায়াম করার অভ্যাস গড়ে তুলুন। হাজার ব্যস্ততার মাঝেও নিজের জন্য কিছুটা সময় বের করে নিন। টেনশান কাটানোর জন্য অনেক সময় নিয়ে গোসল করুন। ধূমপান পরিহার করুনঃ বৈজ্ঞানিক ভাবে প্রমানিত হয়েছে যে ধূমপান শরীরের premature ageing এর জন্য দায়ী। ধূমপান বন্ধ করলে circulation পর্যাপ্ত গতিতে চলে আর চুলের অকাল-পক্কতাও রোধ হয়। তাহলে দেখলেন তো সিগারেট শরীরের ক্ষতি করে, পকেটের-ও ক্ষতি করে। শরীরের আদ্রতা বজায় রাখুনঃ ক্যাফেইন এবং অ্যালকোহলের পরিমাণ কমিয়ে পানি পান করুন বেশি বেশি। মশলাদার আর ভাজাভুজি জাতীয় খাবার-ও এড়িয়ে চলুন, যেহেতু এই খাবার গুলো শরীরকে dehydrate করে শুষ্ক করে তোলে। আদ্রতার অভাবে পুষ্টিকর উপাদান চুলের ফলিকলে পৌঁছাতে পারেনা, ফলস্রুতিতে পাকা চুলের আনাগোনা দেখা যায়। কপার সমৃদ্ধ খাবার খানঃ অনেক সময় শরীরে কপারের অভাব হলে চুল [...]
    • নারীদের প্রয়োজন পুরুষের তুলনায় বেশি ঘুম? - আমাদের সমাজের উন্নয়নে কার অবদান বেশী? নারীর নাকি পুরুষের? এক কথায় আপনি বলবেন, অবশ্যই পুরুষের। কারণ কর্মোক্ষম পুরুষদের প্রায় সবাই অর্থ আয় করেন। সেখানে কর্মোক্ষম নারীদের একটা বড় অংশ অর্থ আয় তো করেনই না, শিক্ষায়ও তারা পিছিয়ে আছে উল্লেখযোগ্য হারে। তবু গবেষণা বলছে, নারীর মস্তিষ্ক বেশী কাজ করে পুরুষের মস্তিষ্কের তুলনায়। কীভাবে? উত্তর পাবেন একটু ভাবলেই। যেমন- ১। একজন পুরুষ বাইরে কাজে বের হচ্ছেন। তিনি কিন্তু আগে থেকেই জানেন তিনি অফিসে যাবেন। আলাদা করে সিদ্ধান্ত নেওয়ার কিছু নেই। কিন্তু নারীকে সকালে ঘুম থেকে ওঠা থেকেই সিদ্ধান্ত নিতে হচ্ছে, তিনি কী খাবেন, তার স্বামী-সন্তান কী খাবেন! ২। শুধু খাওয়া নয়, সারা দিনে একজন নারীকে অনেকগুলো সিদ্ধান্ত নিতে হবে। বিষয়গুলো আপাত দৃষ্টিতে ছোট হলেও প্রতিবারই তাকে মাথা খাটাতে হয়। ৩। এর সাথে নারী যদি হন চাকরিজীবী তাহলে তাকে নিজের অফিসও সামলাতে হয়। ৪। নারী যদি হন ব্যবসায়ী তাহলে সিদ্ধান্ত গ্রহণের দায়িত্ব বাড়ে আরও। ৫। নারীকে বলা হয় Home maker. কারণ পরিবার একটি প্রতিষ্ঠান। সেই প্রতিষ্ঠানের সকল দায়িত্ব সামলাতে হয় তাকে। বিজ্ঞানীরা বলছেন, পুরুষের তুলনায় নারীদের অন্তত ২০ মিনিট বেশি ঘুম প্রয়োজন। কারণ নারীর মস্তিষ্ক তুলনামূলক বেশি কাজ করে এবং তার বিশ্রামের প্রয়োজনও বেশি। গবেষণাটি করা হয়েছিল ২১০ জন মধ্য বয়সী নারী এবং পুরুষের মাঝে। স্টাডিটির লেখক এবং গবেষক জিম হর্ণ বলেন, “ঘুমের [...]
    • received_1056775821056638 আপনার সাহায্যর হাত টি বাড়িয়ে দিলে বাঁচে যেতে পারে গৌরনদীর মেধাবী ছাত্রী রহিমা বাঁচতে চায় - আপনার সাহায্যর হাত টি বাড়িয়ে দিলে বাঁচে যেতে পারে গৌরনদীর মেধাবী ছাত্রী রহিমা বাঁচতে ॥ মেধাবী ছাত্রী রহিমা আক্তার আকস্মিকভাবে দুরারোগ্য ব্যধিতে আক্রান্ত হয়ে বর্তমানে অর্থাভাবে বিনাচিকিৎসায় শষ্যাশয়ী রয়েছেন। চিকিৎসকেরা বলেছেন, রহিমাকে সম্পূর্ণ সুস্থ্য করতে হলে ৮০ হাজার টাকা মূল্যের ১২টি ইনজেকশন পুশ করতে হবে। কিন্তু এতো টাকা জোগাড় করা তার অসহায় পরিবারের পক্ষে অসম্ভব হয়ে পড়েছে। এমনিতেই চিকিৎসা করাতে গিয়ে রহিমার দিনমজুর পিতা দেনায় জর্জরিত হয়ে পড়েছেন। তাই তিনি তার মেধাবী ছাত্রী মেয়েকে উন্নত চিকিৎসার মাধ্যমে সম্পূর্ণ সুস্থ্য করতে সমাজের মহানুভব ব্যক্তি, প্রবাসী ও প্রধানমন্ত্রীর কাছে সাহায্যের জন্য হাত পেতেছেন।   বরিশাল নার্সিং কলেজের বিএসসি ইন নাসিং কোর্সের মেধাবী ছাত্রী রহিমা আক্তারের (২১) বাড়ি জেলার গৌরনদী উপজেলার কাছেমাবাদ গ্রামে। সে ওই গ্রামের দিনমজুর আবুল কালাম খানের কন্যা।   একার আয়েই স্ত্রী, চার কন্যা ও এক পুত্রকে নিয়ে চলছিলো স্থানীয় মাহিলাড়া বাজারের কাঁচা মালের আড়তের শ্রমিক দিনমজুর আবুল কালাম খানের সংসার। নিজে অক্ষর জ্ঞানহীন থাকলেও কালাম খান স্বপ্ন দেখেছিলেন, ছেলে মেয়েদের উচ্চ শিক্ষায় শিক্ষিত হিসেবে গড়ে তুলতে। ছেলে সবার ছোট। সব মেয়েরাই পড়াশুনা চালিয়ে যাচ্ছিলো। এরমধ্যে রহিমা আক্তার এসএসসি ও এইচএসসি পরীক্ষায় জিপিএ-৫ প্রাপ্ত হয়। পরবর্তীতে নিজের অধির আগ্রহে ২০১৩-২০১৪ সেশনে রহিমা বরিশাল নার্সিং কলেজে বিএসসি ইন নাসিং কোর্সে ভর্তি হয়।   আবুল কালাম খান বলেন, গত ৩মার্চ তার মেয়ে রহিমান [...]
    • স্তনে ছোট চাকার মতো অনুভব করছি - আপনার স্তনের সমস্যা অবশ্যই চিকিৎসার আওতায় পড়ে। এটা এক ধরনের টিউমার হতে পারে। সব টিউমারই ক্যান্সার নয়। তবে আকার চেঞ্জ হয়েছে কী রকম সেটা অবশ্যই ডাঃ কে দেখাতে হবে। প্রাথমিকভাবে আপনি জেলা সদর হাসপাতালে পাঁচ টাকা দিয়ে টিকেট করে সার্জারির ডাঃ দেখাবেন। হাসপাতালে CBE (clinical breast examination )হয়, বিনামূল্যে একজন প্রশিক্ষিত নার্স এটা করেন। দেরী না করে দেখিয়ে আসতে পারেন। ধন্যবাদ পরামর্শ দিয়েছেন : সুলতানা পারভীন উপসহকারী কমিউনিটি মেডিকেল অফিসার
    • IMG_20160114_232832 বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর এ গণি ইন্তেকাল করেছেন - বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর এ গণি ইন্তেকাল করেছেন রাজধানীর স্কয়ার হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা গেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আর এ গণি (ইন্না লিল্লাহি ওয়া ইন্না ইলাইহি রাজিউন)। শুক্রবার (১৪ জানুয়ারি) দিনগত রাত আনুমানিক সাড়ে ১২টায় স্কয়ার হাসপাতালের নিবিড় পরিচর্যা কেন্দ্র আইসিইউতে শেষ নিশ্বাস ত্যাগ করেন তিনি। এসময় তার বয়স হয়েছিলো ৯৮ বছর। বিষয়টি  জানিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসনের গণমাধ্যম শাখার কর্মকর্তা শায়রুল কবির খান। স্কয়ার হাসপাতালের কাস্টমার সার্ভিস অফিসার গোলাম মওলা জানান, শুক্রবার দিনগত রাত সাড়ে ১২টার দিকে তিনি মারা যান। রাতেই হাসপাতাল থেকে তার মৃতদেহ নিজ বাসভবনে নেয়া হবে বলে জানিয়েছে তার পরিবার বলেও জানান তিনি।এর আগে হৃদরোগসহ বিভিন্ন সমস্যায় অসুস্থ হয়ে পড়লে বুধবার (০৬ জানুয়ারি) সকালে ধানমন্ডির স্কয়ার হাসপাতালে তাকে ভর্তি করা হয়। পরবর্তীতে তার শারীরিক অবস্থার অবনতি হলে বৃহস্পতিবার (০৭ জানুয়ারি) রাতে তাকে আইসিইউতে স্থানান্তর করা
    • জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা আর নেই - জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা আর নেই  বাংলা সিনেমার জনপ্রিয় অভিনেত্রী শাবানা। দেড় যুগ হলো অভিনয় ছেড়েছেন। কিন্তু দর্শকরা এখনো তাকে ছাড়েননি। ভক্তদের হৃদয়ের মণিকোঠায় রয়েছেন তিনি। দর্শকরা অপেক্ষায় ছিলেন শাবানা আবার পর্দায় ফিরবেন। কিন্তু ফেরেননি। বরাবরই মিডিয়ার আড়ালে থেকেছেন তিনি। তবে মাঝে মাঝেই অমাবশ্যার চাঁদের মতো দেখা মেলে। ১৯৯৭ সালে শাবানা হঠাৎ চলচ্চিত্র থেকে বিদায়ের ঘোষনা দেন এবং নতুন ছবিতে চুক্তিবদ্ধ হওয়া বন্ধ করে দেন। ২০০০ সালে শাবানা সপরিবারে যুক্তরাষ্ট্রের নিউজার্সিতে বসবাস শুরু করেন। যুক্তরাষ্ট্রে যাওয়ার প্রায় এক যুগ পরে শাবানা দেশে ফিরেন ফিলেছিলেন ২০১১ সালের ফেব্রুয়ারী মাসে। শ্বশুর বাড়ি কেশবপুরের বড়েঙ্গা গ্রামে নিজস্ব বসতবাড়ি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে যোগ দেয়ার জন্য তিনি দেশে ফিরেন। কয়েকদিন থেকে আবার আমেরিকায় পাড়ি জমান। শাবানার খুব ইচ্ছা ছিল বেগম বেগম রোকেয়া চরিত্রে অভিনয় করবেন। সুভাষ দত্ত ছবিটি নির্মানের উদ্যোগ নিয়েছিলেন। ১৯৯৫ সালে মহরতও অনুষ্ঠিত হয়। অল্প কিছু কাজ হলেও সিনেমাটি শেষ পর্যন্ত আলোর মুখ দেখেনি
    • 02-Jhenidah-Mats-Student-Hu ঝিনাইদহে ম্যাটস্ শিক্ষার্থীদের ৪ দফা দাবিতে মানববন্ধন - এইচ.এম ইমরান, ঝিনাইদহ থেকে : ঝিনাইদহে ম্যাটস্ শিক্ষার্থীদের ৪ দফা দাবিতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ ডিপ্লোমা মেডিকেল স্টুডেন্ট এ্যাসোসিয়েশন (বিডিএমএসএ) ঝিনাইদহ জেলা শাখা এ কর্মসুচির আয়োজন করে। এ উপলক্ষে জেলা শহরের ওয়াজের আলী হাই স্কুল মাঠ থেকে আজ সকাল সাড়ে ১০ টার দিকে একটি র‌্যালী বের করা হয়। র‌্যালী শেষে স্থানীয় পোষ্ঠ অফিস মোড়ে ঘন্টা ব্যপাী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে ম্যাটস্ শিক্ষক ডা: আরিফ হাসান সহ ম্যাটস্ এর সকল শিক্ষার্থীরা উপস্থিত ছিলেন। মানববন্ধনে ৪ দফা দাবি সম্বলিত বিভিন্ন প্লাকার্ড বহন করা হয়। মানববন্ধনে বক্তারা উচ্চ শিক্ষার অধিকার দেওয়া, পুনরায় ইন্টার্নী ভাতার ব্যবস্থা করা, মেডিকেল এ্যাডুকেশন বোর্ড গঠন সহ ৪ দফা দাবি অবিলম্বে মেনে নেওয়ার দাবি জানান সরকারের কাছে। দাবি মানা না হলে আরো কঠোর কর্মসুচির ঘোষণা দেন তারা।
    • Shailkupa meeting pic-15-11-15 শৈলকুপায় সরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানের গণশুনানী - এইচ.এম ইমরান, ঝিনাইদহ থেকে : ঝিনাইদহের শৈলকুপায় সরকারী সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠান সমূহের গণশুনানি অনুষ্ঠিত হয়েছে। সুবিধাবঞ্চিত মানুষের অধিকার আদায়ের উদ্যোগ গ্রহণে বে-সরকারী সংগঠন এ্যাকশান ইন ডেভেলপমেন্ট এইড এর আয়োজন করে। রোববার শৈলকুপা প্রাথমিক শিক্ষক সমিতি মিলনায়তনে পাবলিক হেয়ারিং (গণশুনানী) এ সভাপতিত্ব করেন শৈলকুপা উপজেলা অধিকার মঞ্চ’র সভাপতি আব্দুস সোবহান। অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন সমাজসেবা কর্মকর্তা তরিকুল ইসলাম, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা রিয়াজ উদ্দিন, হাসপাতালের আরএমও রাকিব উদ্দিন, পরিবার পরিকল্পনা পরিদর্শক বেবি আরা, এইড’র ড্রিম প্রকল্প’র এরিয়া সমন্বয়কারী বিষ্ণুপদ ঘোষ প্রমুখ।
    জাতীয় আন্তর্জাতিক রাজনীতি
    অর্থনীতি খেলাধুলা গড়াই স্পেশাল
    বিনোদন
    ঢাকা বিভাগ চট্রগ্রাম বিভাগ খুলনা বিভাগ
    সিলেট বিভাগ বরিশাল বিভাগ উত্তরবঙ্গ
    বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন
    রুপসজ্জা
    টুরিজম স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি