সংবাদ ব্রিফিং

চট্রগ্রাম বিভাগ

    • 2016-02-28--08_41_02 কুমিল্লায় শ্যামলী পরিবহনের বাস উল্টে নিহত ৩ - কুমিল্লায় শ্যামলী পরিবহনের বাস উল্টে নিহত ৩ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের কুমিল্লার চৌদ্দগ্রামে শ্যামলী পরিবহনের একটি বাস উল্টে নিহত হয়েছেন তিন যাত্রী। এছাড়া আহত হয়েছেন আরো নয়জন। রবিবার ভোর সাড়ে চারটার দিকে চৌদ্দগ্রাম উপজেলা পরিষদের ‍সামনে এ দুর্ঘটনা ঘটে। ঢাকা থেকে চট্টগ্রামগামী বাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার মাঝের ডিভাইডারের উপর উঠে উল্টে গেলে এ দুর্ঘটনা ঘটে বলে জানান চৌদ্দগ্রাম থানার উপপরিদর্শক (এসআই) আব্দুল খালেক। দুর্ঘটনায় আহত ৯ জনের মধ্যে পাঁচজনকে কুমিল্লা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়েছে। একজনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকেরা। নিহতদের দুই জন পুরুষ একজন নারী। নিহতদের মধ্যে দুজনের পরিচয় জানা গেছে। তারা হলেন, ওমর ফারুক (২৯) ও মাজেদা আক্তার (৬০)। তাদের মধ্যে ওমরের বাড়ি লাকসামে ও মাজেদার বাড়ি চৌদ্দগ্রামের কৃষ্ণপুর গ্রামে।
    • PicsArt_12-26-01.38.10 ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিএনপি কর্মীদের নির্বাচনী এলাকার বাইরে থাকতে হুমকি দিচ্ছে আওয়ামীলীগ - ৩০ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিএনপি কর্মীদের নির্বাচনী এলাকার বাইরে থাকতে হুমকি দিচ্ছে আওয়ামী লীগ     খাগড়াছড়ি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভা নির্বাচনের সর্বশেষ অবস্থা নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করেছে খাগড়াছড়ি জেলা বিএনপি।   সোমবার বেলা সাড়ে ১১টার দিকে জেলা বিএনপির কার্যালয়ে পৌর নির্বাচন মনিটরিং সেল এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে।   সংবাদ সম্মেলনে জেলা বিএনপির সভাপতি ও সাবেক সংসদ সদস্য ওয়াদুদ ভূঁইয়া বলেন, খাগড়াছড়ি পৌরসভা নির্বাচনের স্বতন্ত্র প্রার্থী রফিকুল আলম ও মাটিরাঙ্গায় আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী শামছুল হকের সমর্থকরা ভোটারদের হুমকি ধমকি দিচ্ছে এবং বিএনপি নেতাকর্মীদের ৩০ তারিখ ভোটের দিন পর্যন্ত এলাকার বাইরে থাকতে বলছেন।   সংবাদ সম্মেলনে বলা হয়, খাগড়াছড়ি পৌর মেয়র পার্শ্ববর্তী এলাকা ও অন্য জেলা থেকে লোকজন এনে পানখাইয়া পাড়ার শানু মং মারমার পুরাতন বাড়িসহ আশপাশের এলাকায় জড়ো করছেন। এছাড়া খাগড়াছড়ি ও মাটিরাঙ্গায় ধানের শীষের পক্ষে এজেন্ট না হওয়ার জন্য ইতিমধ্যে প্রস্তুতকৃত তালিকা অনুযায়ী ভয়ভীতি দেখাচ্ছে বলে সংবাদ সম্মেলনে অভিযোগ করা হয়।   এদিকে, জেলা বিএনপির সিনিয়রসহ সভাপতি ও নির্বাচন মনিটরিং সেলের প্রধান সমন্বয়কারী প্রবীণ চন্দ্র চাকমা স্বাক্ষরিত একটি অভিযোগপত্র প্রধান নির্বাচন কমিশনারের কাছে জমা দেয়া হয়েছে।   অভিযোগপত্রে খাগড়াছড়ি ও মাটিরাঙ্গা পৌরসভার বিএনপির প্রার্থী, কর্মী-সমর্থককে ভয়ভীতি প্রদর্শন এবং কেন্দ্র দখলের পরিকল্পনার ৬টি অভিযোগ দাখিল করা হয়
    • দূর্নীতির অভিযোগে শৈলকুপার আবাইপুর রামসুন্দর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক বরখাস্ত - এইচ.এম ইমরান, ঝিনাইদহ থেকে : নানা সময়ে বিদ্যালয়ে দুর্নীতি ও অনিয়ম, অর্থআত্মসাতসহ বিভিন্ন অভিযোগে শৈলকুপার আবাইপুর রামসুন্দর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ফয়েজুর রহমানকে সাময়িক বরখাস্ত করেছে ম্যানেজিং কমিটি। জানা যায়, ২০১৩ সালে ১৭ জানুয়ারী শৈলকুপার আবাইপুর রামসুন্দর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে প্রধান শিক্ষক হিসেবে ফয়েজুর রহমান যোগদান করার পর থেকে নানা অনিয়ম শুরু করেন। নিয়োগ বাণিজ্য, স্কুল ফান্ডের  টাকা আত্মসাৎ, নিয়মিত বিদ্যালয়ে উপস্থিত না হওয়াসহ বিভিন্ন অনিয়ম করে আসছিলেন তিনি। সম্প্রতি সরকারী বিধি না মেনে বিএসসি কৃষি বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক নিয়োগে সাকুর্লার থাকলেও সেখানে টাকার বিনিময়ে ডিপ্লোমা কৃষি বিজ্ঞান বিভাগে মঞ্জুরা খাতুন নামে এক শিক্ষিকা নিয়োগ দিয়েছে। এ কারণে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সকল সদস্য একমত হয়ে তাকে শোকজ করে। তিনি শোকজের সদুত্তর না দিতে পারায় কমিটি তাকে বরখাস্ত করে। বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি মোক্তার আহম্মেদ মৃধা জানান, প্রধান শিক্ষক ফয়েজুর রহমান দীর্ঘদিন ধরে অনিয়ম করে আসছিলেন। এর পুর্বে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটিতে যারা ছিলেন তারাও তাকে সহযোগীতা করেছেন। আমি নির্বাচিত হওয়ার পর তাকে অনিয়ম বন্ধে সাবধান করলেও তিনি কর্ণপাত করেননি। সম্প্রতি তিনি টাকার বিনিময়ে অযোগ্য শিক্ষক নিয়োগ দিয়েছেন। এছাড়াও নানা অনিয়ম করে আসছিলেন। যে কারণে তাকে শোকজের পর বিধি মোতাবেক সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। এ ব্যাপারে অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষক ফয়েজুর রহমান বলেন, বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি আমাকে শোকজ করেছিল। আমি তার লিখিত জবাব দিয়েছে। [...]
    • 2015-09-07--11_57_15 খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলি, সন্ত্রাসী আটক, অস্ত্র উদ্ধার - খাগড়াছড়িতে সেনাবাহিনীর সঙ্গে গোলাগুলি, সন্ত্রাসী আটক, অস্ত্র উদ্ধার   খাগড়াছড়ি জেলার দীঘিনালার কামুক্যাছড়া এলাকায় সেনাবাহিনীর সঙ্গে সন্ত্রাসীদের গোলাগুলি হয়েছে। এ সময় অস্ত্রসহ এক সন্ত্রাসীকে আটক করেছে সেনাবাহিনী।   গতকাল রাতে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর খাগড়াছড়ি রিজিয়নের আওতাধীন দিঘীনালা জোনের একদল সেনাসদস্য আলমগীর টিলা সেনাক্যাম্প থেকে দুই কিলোমিটার দক্ষিণে পার্বত্য চট্টগ্রামের সন্ত্রাসী সংগঠন ইউনাইটেড পিপলস ডেমোক্রাটিক ফ্রন্টের (ইউপিডিএফ) গোপন আস্তানায় অভিযান শুরু করে। আজ সকাল পর্যন্ত চলা অভিযানে ৫টি আগ্নেয়াস্ত্র ও বিপুল পরিমাণ গোলাবারুদ উদ্ধার করা হয়েছে। উদ্ধারকৃত অস্ত্রের মধ্যে রয়েছে- একটি ভারী মেশিনগান, দুইটি এসএলআর, দুইটি এসএমজির মতো ভয়ানক মারণাস্ত্র রয়েছে। এছাড়াও তিনটি এসএলআরের ম্যাগজিন, তিনটি এসএমজি’র ম্যাগজিনসহ ৮ টি ম্যাগজিন, ৪৩ রাউণ্ড ৭.৬২ বোরের গুলি, ৯৬ রাউন্ড ৫.৫৬ বোরের গুলি। এ ঘটনায় সেনবাহিনী একজনকে আটক করতে সক্ষম হয়েছে।   খাগড়াছড়ি সেনা রিজিয়নের জিটুআই মেজর নাছির ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানিয়েছেন, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এ অভিযান চালানো হয়।
    • 2015-08-23--13_14_07-1 বাসা থেকে ডেকে নিয়ে মহিলা আ’লীগের কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা - বাসা থেকে ডেকে নিয়ে মহিলা আ’লীগের কর্মীকে কুপিয়ে হত্যা চাঁদপুর শহরের রহমতপুর আবাসিক এলাকায় বাসা থেকে ডেকে নিয়ে জেলা মহিলা আওয়ামীলীগের এক সক্রিয় কর্মী কোহিনুর বেগমকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। শনিবার দিনগত রাতে এ ঘটনা ঘটে। নিহত কোহিনুর বেগমের স্বামী আব্দুল মান্নান খান দীর্ঘবছর ধরে সৌদি আরব থাকেন। কয়েকদিন আগে দেশে এসেছেন তিনি।   স্থানীয়রা জানিয়েছেন, ওই এলাকার ভূঁইয়া বাড়ির নয়ন নামের এক নারী কোহিনুরকে শনিবার সন্ধ্যার পর রহমতপুর আবাসিক এলাকার তার ৯০ নং বাসা থেকে ডেকে নিয়ে যায়। তারপর আরো কয়েকজনের সহযোগিতায় কোহিনুরকে হত্যা করে পালিয়ে যায় তারা। ঘটনার পর সেখানে শত শত মানুষ জড়ো হন। তবে আতঙ্কে কেউ মুখ খুলতে রাজি হননি।   এ ঘটনা জানাজানি হলে রাতেই অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মোঃ আশ্রাফুজ্জামান ঘটনাস্থলে যান। এছাড়া চাঁদপুর মডেল থানার পুলিশ গিয়ে লাশ উদ্ধার করে। এ সময় নয়ন বেগমের বড় মেয়ে তিশাকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করে থানায় নিয়ে যায়।   এলাকাবাসী জানান, প্রতিদিনের মতো কোহিনুর বেগম তার তিন সন্তান ও স্বামীকে নিয়ে বাসায় সময় কাটাচ্ছিল। হঠাৎ নয়ন বেগম এসে কোহিনুর বেগমকে ডেকে নিয়ে যায়। রাত ৮টার দিকে নয়ন বেগমের প্রতিবেশীরা হত্যার ঘটনাটি টের পেয়ে জনপ্রতিনিধি কাউন্সিলর ডিএম শাহ্জাহানকে জানান। পরে শাহ্জাহান চাঁদপুর মডেল থানাকে জানালে মডেল থানা পুলিশ নয়ন বেগমের বাসার খাটের নিচ থেকে কোহিনুর বেগমের লাশ উদ্ধার করে। [...]
    • 2015-07-25--12_37_40 নামাজ বন্ধ করে মসজিদে দলের অফিস বানালেন সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া - নামাজ বন্ধ করে মসজিদে দলের অফিস বানালেন সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়ুয়া চট্টগ্রাম মীরসরাই থানার ১৪নং হাইকান্দি ইউনিয়নের দমদমা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় সংলগ্ন ইউনিয়ন পরিষদের পুরনো পরিত্যক্ত কক্ষে জনসাধারণের নামাজ আদায় বন্ধ করে দিয়ে সাম্যবাদী দলের অফিস স্থাপন করেছেন সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়–য়া। এ ঘটনা নিয়ে স্থানীয়ভাবে প্রতিবাদ অব্যাহত থাকলেও এর কোনো বিহিত হচ্ছে না বলে জানিয়েছে স্থানীয় সরকারি প্রাথমিক স্কুলের শিক্ষকগণ, উত্তর ও দক্ষিণ হাইকান্দি জামে মসজিদদ্বয়ের খতিব মাও. শামসুদ্দীন ও মাওলানা জহুরুল ইসলাম।গতকালও বাদ জুমা এ ঘটনার প্রতিবাদ হয়েছে বলে তারা জানান। তারা বলেন, জনসম্পৃক্ততা বিহীন সাবেক মন্ত্রী দিলীপ বড়–য়া এবং স্থানীয় চেয়ারম্যান মো. জাহাঙ্গীর আলম যোগসাজস করে মসজিদ উচ্ছেদ করে সেখানে সাম্যবাদী দলের অফিস বানানোর পর এখানে রাতে মদ জুয়ার আসর বসা শুরু হয়েছে। অভিযোগে বলা হযেছে, এ এলাকাটি হিন্দু ও বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের লোকদের বসতি অধিক। দূর-দূরান্ত হতে আসা ছাত্র, শিক্ষক, গ্রান্ড ট্রাংক রোডে যাতায়াতকারী লোকজন গত ৩০ বছরের অধিক সময় ধরে এ স্থানে জোহর, আছর ও মাগরিবের নামাজ আদায় করে আসছিলেন। মসজিদ কক্ষ দখল করে সাম্যবাদী দলের অফিস স্থাপনের কারণে মুসল্লিদের নামাজ আদায় বন্ধ হয়ে যাওয়ায় তারা বিপাকে পড়েছেন। তারা বলেন, দিলীপ বড়–য়া এলাকায় গত দুই নির্বাচনে ১০ ভোট ও ১৬ ভোট পেয়েছেন। অভিযোগকারীগণ এ বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে দ্রুত হস্তক্ষেপের মাধ্যমে মুসল্লিদের নামাজের কক্ষটি উদ্ধার করে নামাজ [...]
    • 2015-07-15--23_41_50 নববধূর উপর বর্বরতা পুলিশ অভিযোগ গ্রহণ করছেনা -   নববধূর উপর বর্বরতা পুলিশ অভিযোগ গ্রহণ করছেনা কক্সবাজার সদর উখিয়া উপজেলার কুতুপালং নিবাসী এক হত দরিদ্র ব্যক্তির নাম বিদর্শন বড়ুয়া। অনেক কষ্ট এবং মানুষের সাহায্য সহযোগিতা নিয়ে গত ২৮ জুন, ২০১৫ মেয়ের বিবাহ দিয়েছিলেন। মেয়ের নাম ইতি বড়ুয়া। মেয়ের বিবাহ দিয়েছিলেন মধ্যম রত্না নিবাসী মনমোহন বড়ুয়ার পুত্র রদেশ বড়ুয়ার সাথে। ভাগ্যের নির্মম বিড়ম্বনা। সংসার করা হল না মেয়েটির।গত ৯ জুলাই, ২০১৫ স্বামী রদেশ বড়ুয়ার ঘর থেকে অপহরণের শিকার হন নব বিবাহিতা গৃহবধূ ইতি বড়ুয়া। অপহরণ হওয়ার চার দিন পর ১২ জুলাই ইতিকে হাত পা বাধা অবস্থায় উদ্ধার করা হয়।গতকাল আমাকে জানানো হলে আমি কক্সবাজার সদর হাসপাতালে মেয়েটিকে দেখতে যাই। মেয়ের অভিভাবক বলছেন, ‘অপহরণকারী এবংনির্যাতনকারীদের ইতি চিনতে পেরেছেন। তারা প্রমাণ নষ্ট করার দুরভিসন্ধি নিয়ে হাসপাতাল পর্যন্ত পৌছে গেছেন। বর্তমান আমরা মেয়ের নিরাপত্তা নিয়ে শংকিত।’ইতির বাবা বলেন, ‘স্থানীয় চেয়্যারম্যানকে জানিয়েছিলাম। কিন্তু তিনি থানায় না যেতে বলেছেন। মামলা না করার পরামর্শ দিয়েছেন ।’এদিকে থানার আশ্রয় নিতে গেলে পুলিশ তাদের অভিযোগ গ্রহণ করেননি। অভিযোগ করতে হলে ঘটনার শিকার ইতিকে আসতে হবে বলেছেন পুলিশ।কিন্তু ইতির এই মুমূর্ষ অবস্থায় হাসপাতাল থেকে বের হওয়া সম্ভব নয়। হত দরিদ্র এবং বর্বর নির্যাতনের শিকার মেয়েটির পাশেএই সচেতন সমাজ দাঁড়াবে কি ? এমন আর্তি ইতির মা বাবার।
    • FB_IMG_1435751028158 পুরো দেশটাই আজ নীতি বিরুদ্ধ সম্পর্কের অভয়ারণ্য -   পুরো দেশটাই আজ নীতি বিরুদ্ধ সম্পর্কের অভয়ারণ্য! খুন করা একটি মনোজাগতিক বিষয়, একজন খুনি কখনোই স্বাভাবিক চরিত্রের নয়। খুনিকে সংশোধনের প্রচেষ্টা ব্যতিরেকে বরং খুনকে বৈধতা দেওয়া যেতে পারে। ধর্ষণ একটি মনোজাগতিক বিষয়, অনিয়ন্ত্রিত জীবনে নিয়ন্ত্রণ আনয়নের প্রচেষ্টা বাদ দিয়ে, শিক্ষা বাদ দিয়ে, সংশোধনের চিকিৎসা বাদ দিয়ে এটিকে বৈধতা দিলে কেমন হয়?   আমি আমরা প্রতিটি মানুষই কম বেশী অসুস্থ, এই অসুস্থতা নৈতিকতা এবং মূল্যবোধ প্রশ্নে, এরপরেও সংশোধনের অথবা ক্ষমার পথ খুজে বেড়ায়। তাইতো কিছুক্ষণ আগে ওজনে কম দিয়ে আসা মানুষটিও প্রার্থনায় সামিল হয়, স্রস্টার নিকট ক্ষমা প্রার্থনা করে। ঘুষ এবং দুর্নীতিতে আকন্ঠ ডুবে থাকা মানুষটিও চায় না তার সন্তানসন্তদি একই দোষে দুষ্ট হোক।   আর এখন কি হচ্ছে? সংশোধনের প্রচেষ্টা বাদ দিয়ে নীতি ও মূল্যবোধ বিরোদ্ধ প্রায় সব কাজকেই বৈধতা দেওয়া হচ্ছে। পাশ্চাত্যে মনোজাগতিক এবং দৈহিক সীমাবদ্ধতার বিষয় টেনে এনে নীতি ও রীতি বিরুদ্ধ কাজকে বৈধতা দেওয়ায় আজ আমরা অনেক ক্ষুদ্ধ। ক্ষুদ্ধ হওয়ার যথেষ্ট যৌক্তিক কারণ রয়েছে, আর তাইতো দুশ্চিন্তা আমার এই ক্ষোভ সকল ক্ষেত্রে সঠিক সময়ে আসা কি প্রয়োজন নয়? এই দারিদ্র পীড়িত জনপদের হাজার হাজার কোটি টাকা যারা রাত দিন লুন্টন করে আমাদের ভিখারি বানায় তাদের এই লুন্টনের বৈধতা কি রাষ্ট্র সমাজ দিচ্ছে না? ধর্ষণের শতক উদযাপনকারীর উৎসবের বৈধতা কি এই রাষ্ট্র দেয় নি? আল্লাহ্‌ এবং তার [...]
    • 240441e2b39c4b61a5169cf247578005_M ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা গ্রেফতার  - ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ইউপি সদস্য যুবলীগ নেতা গ্রেফতার গড়াই২৪নিউজ লক্ষ্মীপুর সদর উপজেলার দিঘলী ইউনিয়নের খাগুড়িয়া এলাকায় ডাকাতির প্রস্তুতিকালে ইউপি সদস্য ডাকাত সরদার ইকবাল হোসেন ও সুমনসহ দুই ডাকাতকে গতকাল মঙ্গলবার ভোররাতে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ডাকাত ইকবাল হোসেন চরশাহী ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য ও পূর্বশহীদপুর গ্রামের মৃত রুহুল আমিনের ছেলে ও সুমন হোসেন আমান উল্যাহপুর গ্রামের ইছমাইল হোসেনের ছেলে বলে জানিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত ইকবাল হোসেন নিজেকে একই উপজেলার চরশাহী ইউনিয়ন যুবলীগের আহ্বায়ক ও ৬নং ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বলে দাবি করেছেন। চন্দ্রগঞ্জ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোঃ হুমাযুন কবির জানান, পুলিশের তালিকাভুক্ত সন্ত্রাসী ও দুর্ধর্ষ ডাকাত ইউপি সদস্য ইকবাল হোসেনকে ডাকাতির প্রস্তুতির সময় গোপন সংবাদের ভিত্তিতে গ্রেফতার করা হয়েছে। এছাড়া একই সময় অপর ডাকাত সুমনকেও গ্রেফতার করা হয়। ডাকাত ইকবাল হোসেনের বিরুদ্ধে ডাকাতি, চাঁদাবাজি, অপহরণসহ বেশ কয়েকটি মামলা রয়েছে।
    • 20150513114721 ৪৫দিন পর সাগর থেকে ফিরে এলো ১১৬ - ৪৫দিন পর সাগর থেকে ফিরে এলো ১১৬ গড়াই২৪নিউজ   মালয়েশিয়াগামী যাত্রীবঙ্গোপসাগরে দীর্ঘ দেড় মাস ধরে ভাসমান থাকার পর অবশেষে ১১৬ জন মালয়েশিয়াগামী টেকনাফ উপকূলে ফিরে এসেছে। থাইল্যান্ডে ধরপাকড় বেড়ে যাওয়ার প্রেক্ষিতেদালাল ও ট্রলার মাঝি-মাল্লারা অপর ট্রলার নিয়ে পালিয়ে গিয়েছে। দালাল ও মাঝি-মাল্লারা থাইল্যান্ড ও মিয়ানমারের নাগরিক। পরে ১১৬ জন যাত্রীরা নিজেই ট্রলারটি নিয়ে সেন্টমার্টিন উপকূলের দিকে আসার সময় সেন্টমার্টিন কোস্টগার্ড তাদের আটক করে। ফিরে আসা সকলে বাংলাদেশী নাগরিক। তম্মধ্যে কক্সবাজার, সিরাজগঞ্জ, ব্রাম্মনবাড়িয়া,নারায়নগঞ্জ, বগুড়া, সুনামগঞ্জ, পাবনা, যশোর ও ময়মনসিংহ জেলার বাসিন্দা। ফিরে আসা যাত্রীদের “আইওএম” নামক একটি এনজিও সংস্থার চিকিৎসক টিম চিকিৎসা প্রদান করেছে।মালয়েশিয়াগামী যাত্রীদের মঙ্গলবার বিকাল ৪ টায় সেন্টমার্টিন থেকে পূর্ব-দক্ষিনের সাড়ে ৭ কিলোমিটার অদূরে গভীর বঙ্গোপসাগর থেকে আটক করা হলেও১৩ মে বুধবার সকাল ৭ টায় টেকনাফ উপকূলে নিয়ে আসা হয়।ফিরে আসা সিরাজগঞ্জ জেলার রতনকান্দি উপজেলার একডালা এলাকার মোঃ রিপন জানান, মোঃ জাকির নামে এক বন্দু টেকনাফ ভ্রমনের কথা বলে নিয়ে আসে। টেকনাফে পৌঁছলে ওই বন্ধু তাকে ১৫ হাজার টাকার বিনিময়ে দালালদের কাছে বিক্রি করে দেয়। দালালরা তাকের জোর পূর্বক একটি সিএনজিতে তুলে নিয়ে রাতেই সাগরে অপেক্ষামান ট্রলারে নিয়ে যায়। সে আরো জানায়, যেখানে ট্রলারটি অবস্থান করছিল সেখানে ১৪ টি ট্রলার রয়েছে।মাঝি-মাল্লারা সকলে মিয়ানমার ও থাইল্যান্ডের নাগরিক। ট্রলারে মোট ১৬৪ জন যাত্রী ছিল। তম্মধ্যে ৩০ জনকে একটি ছোট বোটে করে [...]
    জাতীয় আন্তর্জাতিক রাজনীতি
    অর্থনীতি খেলাধুলা গড়াই স্পেশাল
    বিনোদন
    ঢাকা বিভাগ চট্রগ্রাম বিভাগ খুলনা বিভাগ
    সিলেট বিভাগ বরিশাল বিভাগ উত্তরবঙ্গ
    বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন বিজ্ঞাপন
    রুপসজ্জা
    টুরিজম স্বাস্থ্য বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি